ঈশ্বরদীতে আইপিএম কৃষক মাঠ স্কুলের মাঠ দিবস পালিত

0
122

সেলিম আহমেদ, ঈশ্বরদী থেকে ॥ ঈশ্বরদীতে আইপিএম কৌশলের মাধ্যমে নিরাপদ ফসল উৎপাদন প্রকল্পের আওতায় কৃষক মাঠ স্কুলের মাঠ দিবস পালন হয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক প্রাপ্ত কৃৃষক সিদ্দিকুর রহমান কূল ময়েজের আড়কান্দিস্থ খামারে কৃষক মাঠ স্কুলের মাঠ দিবস পালিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঈশ্বরদী উপজেলা অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা রোকসানা কামরুন্নাহার।
বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সোসাইটি কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক প্রাপ্ত কৃৃষক সিদ্দিকুর রহমান কূল ময়েজের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঈশ্বরদী উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোস্তফা হাসান ইমাম, মুলাডুলি ইউপি সদস্য জাহিদ হাসান তারা মালিথা, বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক প্রাপ্ত কৃৃষক বেলি বেগম, উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা আলিউজ্জামান জিয়া, উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা এখলাছুর রহমান ও উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম। এছাড়া বক্তব্য রাখেন মৎস্য চাষি কবির মালিথা, আবু বক্কার সিদ্দিক, আইরিন আক্তার ও আশরাফুজ্জামান তন্ময়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা সাবিহা সুলতানা।
বক্তারা বলেন, কৃষক তার মাঠে গিয়ে যদি ভালো ফসল পায় তাহলেই তার স্বাধিনতা। কিন্তু ভালো ফসল পেয়েও ন্যার্য্য দাম না পাওয়ায় কৃষক প্রতিনিয়িত ক্ষতিগ্রহস্থ হচ্ছে। কৃষক মাঠ স্কুলে কৃষকদের হাতে কলমে শিক্ষা দেয়া হয়। উপকারি এবং ক্ষতিকারক পোকা-মাকড় চিহ্নিত করে চেনানো হয়। কৃষক মাঠ স্কুলে শিক্ষা নিয়ে আইপিএম ক্লাবের সৃষ্টি হয়েছে। এই ক্লাবের সাথে জড়িত কৃষকেরা উপকৃত হচ্ছে। আইপিএম পদ্ধতিতে চাষাবাদকৃত ফসল ও ফলমূল মানব দেহের স্বাস্থ্য কর।
বক্তারা আরও বলেন, কীটনাষক মানব দেহের জন্য মারাত্বক ক্ষতিকর ও ঝুঁকি পূর্ণ। দাম একটু বেশি হলেও মানুষ এখন নিরাপদ খাদ্য খেতে চায়। কীটনাষক বিহিন এবং আইপিএম পদ্ধতিতে ফেরোমন ঢোপ লাগিয়ে হাত বাছাইয়ে চাষাবাদ করলে নিরাপদ খাদ্য পাওয়া যায়। নিরাপদ ফলমূলের বাজারে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। অন্য ফলমূলের চেয়ে নিরাপদ ফলমূলের দামও তুলনামূলক অনেক বেশি।

LEAVE A REPLY