ঈশ্বরদীতে গাইড বিক্রি নিয়ে তুলকানাম ॥ প্যাকেজ গাইড বিক্রি নিষিদ্ধ ঘোষণা

0
140

সেলিম আহমেদ  ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতা ॥ ঈশ্বরদীতে গাইড বই বিক্রি নিয়ে তুলকানাম কান্ড ঘটে গেছে। ঈশ্বরদী পুস্তক বিক্রেতা সমিতির সভাপতি ও গাইড বইয়ের এজেন্ট আবু হাসানের লাইব্রেরী হাসান বুক ডিপো আজ বৃহস্পতিবার বন্ধ করে দেয়া হয়। পরে শিল্প ও বণিক সমিতি কার্যালয়ে সমঝোতা বৈঠকে ঈশ্বরদীতে প্যাকেজ গাইড বই বিক্রি নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
ঘটনার বিষয়ে ভূক্তভোগী পৌর যুবলীগ সভাপতি আলাউদ্দিন বিপ্লব জানান, মেয়ের ৫ম শ্রেণীর ইংরেজীর পাঞ্জেরী গাইড কেনার জন্য কলেজ রোডের স্টুডেন্ট লাইব্রেরীতে গেলে লাইব্রেরী মালিক শুধু ইংরেজীর গাইড বিক্রি হয় না, সিলেবাসের সম্পূর্ণ পাঠ্য পুস্তকের প্যাকেজ গাইড এক সাথে কিনতে হবে বলে জানান। বিপ্লব সম্পূর্ণ গাইড কিনতে অপারগতা প্রকাশ করলে লাইব্রেরী মালিক এব্যাপারে তাদের কিছু করণীয় নেই, সমিতির সভাপতি ও এজেন্ট আবু হাসানকে বলতে হবে। ঘটনা সম্পর্কে জানার জন্য আবু হাসানকে তিনি ফোন দিলে অনেক কথাবার্তার এক পর্যায়ে হাসান অশ্রাব্য বাক্য প্রয়োগ করেন বলে বিপ্লব অভিযোগ করেন। বিপ্লব এসময় বলেন, এক সাথে সব বইয়ের গাইড সকলের কেনার সামর্থ্য এবং প্রয়োজনও নেই। যার যেটা প্রয়োজন সে সেই বইটা কিনবে। গাইড প্রস্তুতকারী এবং বই বিক্রেতারা অধিক মুনাফার আশায় সিন্ডিকেট করে প্যাকেজ গাইড বিক্রির মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে জিম্মি করেছে বলে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
প্রত্যক্ষদশী শিল্প ও বণিক সমিতির সদস্য কে এম বাশার জানান, ফোনে অশ্রাব্য বাক্য প্রয়োগের ঘটনার পর বিপ্লব ৪/৫ জন যুবলীগ নেতাকে সাথে নিয়ে আবু হাসানের ‘হাসান বুক ডিপোতে’ এসে অশ্রাব্য ভাষা প্রয়োগ এবং প্যাকেজ গাইড বই বিক্রির প্রতিবাদ জানায়। এসময় লোকজন পথচারীরাও ভিড় জমালে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠে। বাশার বলেন, অনাকাঙ্খিত ঘটনার আশংকায় এসময় আমি হাসান বুক ডিপো বন্ধ করতে বলি এবং দোকান বন্ধ করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
এব্যাপারে আবু হাসান অনাকাঙ্খিত ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, আমরা এজেন্ট ও খুচরা বিক্রেতা। পাঞ্জেরী, লেকচার, অনুপমসহ ৭-৮টি গাইড বই প্রকাশনা সংস্থাগুলো তৃতীয় শ্রেণী হতে নবম শ্রেণী পর্যন্ত সিলেবাসের সকল বইয়ের আলাদা গাইড এক সাথে প্যাকেজ করে বাজারজাত করেছে। বইগুলোর আলাদা দাম নির্ধারণ না করায় আমাদের এই সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। যেজন্য বিষয়ওয়ারী বই বিক্রির উপায় নেই।
এবিষয়ে মাধ্যমিক শিক্ষার উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার বলেন, সরকার সব সময়ই গাইডবই বিক্রির বিরুদ্ধে। কিন্তু সুস্পষ্ঠ দিক নির্দেশনা না থাকায় আমরা পদক্ষেপ গ্রহন করতে পারছি না।
দুপুরে শিল্প ও সমিতি কার্যালয়ে উভয় পক্ষকে নিয়ে একটি সমঝোতা সমিতির সভাপতি শফিকুল ইসলাম বাচ্চুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এসময় আলাউদ্দিন বিপ্লব, সভাপতি শফিকুল ইসলাম বাচ্চুসহ উপস্থিত সকলেই ঈশ্বরদীতে প্যাকেজ গাইড বই বিক্রি না করে আলাদা ভাবে বিক্রির দাবি জানায়। ঈশ্বরদীতে প্যাকেজ গাইড বই বিক্রি নিষিদ্ধ ঘোষণা এবং হাসান বুক ডিপো খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

LEAVE A REPLY