ঈশ্বরদী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজে পুরষ্কার বিতরণ, বিদায় ও বরণ অনুষ্ঠিত

0
130

সেলিম আহমেদ ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতা ॥    ঈশ্বরদী শহরের গার্লস স্কুল এন্ড কলেজে বাষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ২০১৮ এর পুরষ্কার বিতরণ, এসএসসি শিক্ষার্থীদের বিদায় ও ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শনিবার দিন ব্যাপি গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ প্রাঙ্গনে পুরষ্কার বিতরণ, ১৫৩ জনের বিদায় ও নবাগত শিক্ষার্থীদের বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। পুরষ্কার বিতরণ, এসএসসির বিদায় ও বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ঈশ্বরদী উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ মখলেছুর রহমান মিন্টু।

ঈশ্বরদী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ড. আসলাম হোসেনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ঈশ্বরদী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ সেলিম আকতার। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন, গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের প্রতিষ্ঠাতার নাতি মোঃ ওমর খালেদ মিশন, স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্য মোঃ রবিউল আলম, মোঃ আক্তারুজ্জামান, মোঃ এবারত হোসেন, সাপ্তাহিক চেতনার ঈশ্বরদীর বার্তা সম্পাদক মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান টিপু ও ঈশ্বরদী উপজেলা ফটো সাংবাদিক এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক সেলিম আহমেদ।

বক্তারা বলেন, আজকের শিশুরা আগামি দিনের ভবিষ্যৎ। এই শিশুরাই একদিন দায়িত্ব নিয়ে দেশ পরিচালনা করবে, দেশের এমপি, মন্ত্রী এবং রাষ্ট্রপতি হবে। শিশুদের সঠিক ভাবে মেধাবি হিসেবে গড়ে তুলতে শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিভাবকদেরও দায়িত্ব কম নয়। প্রতিটি শিশুকে স্কুলে পাঠাতে হবে, শিক্ষার আলো থেকে তাদের বঞ্চিত করা যাবেনা। স্কুলে পাঠদানের পাশাপাশি বাড়িতে যারা নিয়মিত পড়াশুনা করে তারা কখনেই ফেল করতে পারেনা। উন্নত জাতি গঠন করতে হলে মেয়েদের পড়াশুনায় এগিয়ে যেতে হবে। আগামি দুই বছরের মধ্যে ঈশ্বরদীর ছেলে-মেয়েরা শিক্ষায় দেশের ভেতর প্রথম স্থান অর্জন করবে।

বক্তারা আরও বলেন, এই স্কুলে শতভাগ পাশের নিশ্চয়তা, কম্পিউটার ল্যাবে শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা ও মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে ক্লাস নেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। ভালো মানুষ হতে হলে দেশকে জানতে হবে। শুধু জিপিএ-৫ পেলেই যথেষ্ট নয়। একজন শিক্ষকই পারেন শিক্ষার্থীদের ক্লাসে মনোযোগি করে তুলতে। শিশুদের মেধা বিকাশে খেলাধুলা ও সাংস্কৃতির বিকল্প নেই। একজন পরিপূর্ণ মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হলে খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক ও পড়াশুনায় মনোযোগি হতে হবে। একজন শিক্ষিত মা হলে ওই পরিবারে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে যায়। নিজের সন্তানকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে আপনারা যেমন পরিশ্রম করেন ঠিক তেমনী ভাবে এই বিদ্যালয়ের মেয়েদের প্রতি মরোযোগি হতে হবে। নিজেকে প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই।

LEAVE A REPLY