নারী দিবসে নিলরুবা খানম সুমির লেখা ”সচেতন ও স্বাবলম্বী শিক্ষিত নারীই হবে নারী জাগরনের মুল হাতিয়ার”

0
340
নিলরুবা খানম সুমি

”সচেতন ও স্বাবলম্বী শিক্ষিত নারীই হবে নারী জাগরনের মুল হাতিয়ার”

নিলরুবা খানম সুমির

আমার ভাবনা তো গতানুগতিক থেকে ভিন্ন আমি মনে করি প্রতিটা নারীকে আগে স্বাবলম্বী হতে হবে,নিজেকে এবং নিজের যেটুকু যোগ্যতা আছে সেটার মুল্যায়ন করতে হবে। সংসারে তার যে ভুমিকা সেটাকে কোন ভাবেই খাটো যাতে কেউ করতে না পারে সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।তাই সমাজ কে এগিয়ে নিতে হলে নারীকে তার যথাযথ সম্মান দিতে হবে। এক দিন ঘটা করে দিবস পালন করলেই নারীকে সম্মান দেখানো হয়ে গেলো? তাছাড়া সমাজের সিংহভাগ সচেতনতার অভাবে নির্যাতিত হলেও চুপ করে থাকে এদের বুঝাতে হবে এক বার মেনে নিলে তাকে বারবার মেনে নিতে হবে। তাই তাকে প্রতিবাদ করতে হবে।

নেপোলিয়নের সেই বিখ্যাত উক্তি “আমাকে একটি শিক্ষিত মা দাও, আমি একটি শিক্ষিত জাতি উপহার দিবো ” আমি বলতে চাই শিক্ষিত এবং সচেতন মা দাও। যে মা আমাকে শেখাবে মেয়েরা চাইলে নিজেকে নিরাপদ রেখে সব করতে পারে। যেখানে আমাদের এই ছোট্ট দেশে স্বাধীনতা সংগ্রামে মেয়েরা ছেলেদের পাশাপাশি সমান তালে যুদ্ধ করেছে। বিরাংঙনা হয়ে ও থেমে থাকেনি। আমরা সে দেশের নারী।আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী, বিরোধী দলীয় নেত্রী ওজাতীয় সংসদের স্পিকার ও এক জন নারী।উনারা যদি পারেন তবে আমরা কেন পারবো না। সেজন্য আমাদের  নিজেদের জাগাতে হবে। আমরা শুধু উদাহরণ দিবো না, আমরা ওএকদিন অন্যের উদাহরণ হবো। আরেক কথা আমি সকল নারীদের বলতে চাই আমরা যেনো আমাদের ছেলের বউদের মুল্যায়ন করি কারন সে কারো না কারো মেয়ে।

তাই সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে নারী শিক্ষার উন্নয়নন নারী জাগরনের মুল হাতিয়ার হসম্ভব ? এদেশে গ্রাম গঞ্জ এবং শহরে এখনো বহু নারী নির্যাতন এর শিকার হচ্ছে, তাছাড়া এদেশের বেশীর ভাগ নারী নির্যাতন এর কারন নারীরাই।
তাই সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে নারী শিক্ষার উন্নয়ন নারী জাগরনের মুল হাতিয়ার হওয়া সম্ভব। এদেশে গ্রাম গঞ্জ এবং শহরে এখনো বহু নারী নির্যাতন এর শিকার হচ্ছে, তাছাড়া এদেশের বেশীর ভাগ নারী নির্যাতন এর কারন নারীরাই।

আমি নারী নির্যাতন এর দায় একতরফা ভাবে পুরুষদেরকে দিতে চাই না। কারন তাদের সহযোগিতা ছারা বেগম রোকেয়া বেগম রোকেয়া হয়ে, উঠতে পারতেন না।

তার লেখাপড়া শিখা পেছনে প্রথমে তার বড় ভাই এবং পরে তার স্বামী সাখাওয়াত হোসেন এর অবদান অনস্বিকার্য।

লেখক পরিচিতি : নিলরুবা খানম সুমির জন্মস্থান মৌলভীবাজার। লেখক আলোকিত নারী ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ।নারীদের মানসিক বিকাশে জন্য উনি কাজ করেন।
যে কথা লেখক বলে নাই : এই মুহুর্তে ভাবনায় যা এলো তাই লিখে দিলাম।

 

LEAVE A REPLY