পাবনায় খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ও জেলা ছাত্রদলের কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল

0
21

আর কে আকাশ পাবনা প্রতিনিধি : বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধান মন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে এবং জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল পাবনা জেলা শাখার ৬ সদস্যের কমিটি অবিলম্বে বাতিল ও নতুন কমিটির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রদল পাবনা জেলা শাখা। বিক্ষোভ মিছিলে ছাত্রদলের নেতাকর্মী অংশ নেন।
শনিবার সকাল ১১টায় শহরের মহিষের ডিপু থেকে জেলার ছাত্রদলের বিভিন্ন ইউনিটের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী বিক্ষোভে মিছিলে অংশ নেন।
বিক্ষোভ মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক পদক্ষিণ করে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। এসময় বিক্ষোভ মিছিল শেষে এক পথ সভায় বক্তব্য দেন, পাবনা সদর উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাশেদ রানা, ওয়াসিব আব্রার হাসিব, পৌর ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মাহমুদুল হাসান সরকার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ান হোসেন হৃদয়, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক সাজ্জাতুল ইসলাম খান নাদিম, পাবনা পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট শাখা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ.কে.এম. ইমরান মানিক, রুমন আক্তার প্রমূখ।
এসময় বক্তারা অবিলম্বে বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধান মন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানান এবং
পাবনা জেলা শাখার ৬ সদস্যের কমিটি অবিলম্বে বাতিল করে আন্দোলন সংগ্রামে অংশগ্রহণকারী ও ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করে নতুন কমিটি গঠনের জন্য বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়ার সুদৃষ্টি কামনা করেন।

এসময় সদর উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাশেদ রানা বলেন, ত্যাগী নেতা-কর্মীদের বাদ দিয়ে অনভিজ্ঞদের দিয়ে নতুন কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এ থেকে সৃষ্ট ক্ষোভের কারণে তারা পদত্যাগ করেছেন। বর্তমান কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি ঘোষণা না করা পর্যন্ত তারা তাদের আন্দোলন চলবে।

বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারী ছাত্রদল নেতাদের অভিযোগ, পাবনা জেলা শাখার ৬ সদস্যের কমিটি কোন সম্মেলন ও নির্বাচন ছাড়াই ঘোষণা করা হয়। ‘নতুন কমিটিতে রাজপথের অকুতোভয় সৈনিক ও ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হয়নি। যারা দীর্ঘ দিন ধরে আন্দোলনে সংগ্রামে অংশ নিয়ে, জেল জুলুম গ্রেপ্তার নির্যাতন সহ্য করে এবং দলের কর্মকান্ডে সক্রিয়ভাবে অংশ নেওয়া অনেক নেতাকর্মীকে যথাযথ মূল্যায়ন করা হয়নি।’
‘যারা রাজপথে ভারসাম্যহীন, অযোগ্য তাদের নিয়ে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে’ বলেও দাবি করেন এইসব নেতারা। নেতারা অবিলম্বে এ কমিটিকে বাতিল ঘোষণা করে ত্যাগী, শিক্ষিত ও যোগ্যদের নিয়ে কমিটি গঠনের আহ্বান জানান।
তারা আরও বলেন, এই কমিটি বাতিল করা না হলে জেলার বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ একযোগে পদত্যাগ করবেন এবং আগামীতে আরও কঠোর কর্মসূুচি দেবেন।

LEAVE A REPLY