প্রতিভা সন্ধান কাব্য পরিষদ এর ৩/৭/২০১৮ তারিখের সেরা লেখা কবি সুশান্ত কুমার ঘোষ এর কবিতা “হে সুন্দর ! তোমাকে ”

0
39

হে সুন্দর ! তোমাকে
                       সুশান্ত কুমার ঘোষ

হে সুন্দর ! যে তুমি লগ্ন আমার অখণ্ড চেতনায় ,
সর্ব সত্ত্বা বিমন্ডিত সেই তোমাকে বাহান্ন খণ্ড হীরক দ্যুতির
নিপুণ ভাস্কর্যে চৈতন্যের ধ্যানমগ্ন পাগল প্রেমিক
হৃদয় বৃত্তির সমস্ত উপচারে অনুভূতির নিবিড়
কারুকার্যে মূর্ত করে রেখে যেতে চায় ।

যে তুমি সবুজ কিংখাবের হৃদয় থেকে উন্মোচিত
সুবর্ণ দানার মহা মিছিলে কুয়াশা খিন্ন
হেমন্তের প্রান্তর কাঁপিয়ে ছড়িয়ে গিয়েছ ঘরে ঘরে ।
নবান্নের গন্ধ শুঁকে তুষার সিক্ত পৌষ প্রান্তরে
হলুদ কাঁথায় শরীর লেপটে ভাপা পিঠের
ওম নিতে নিতে নলেন গুড়ের সুগন্ধ ছড়াও বাতাসে ।

যে তুমি রূপোলী সুতোর বেশে হিমালয়ের হৃদয়
থেকে অমৃত এনে গঙ্গা- পদ্মা- মেঘনা – যমুনার
হৃদয় ভূমিতে সাজিয়ে রেখেছ জীবন মেলা ।
যে তুমি সবুজ ঘাসের উপর আদিম প্রেমিকার
আনন্দ অশ্রু ছড়াতে ছড়াতে পাখ-পাকালির কলরব
মুখর ঝলমলে সকাল ডিঙিয়ে আগুন পোড়া রোদে
বটবৃক্ষের নিবিড় ছায়ায় শ্রান্ত পথিকের ক্লান্ত নিদ্রায়
নিমগ্ন থাকো সারাটা দুপুর ।

যে তুমি বসুন্ধরার হৃদয় থেকে সবুজ উল্লাসে
জেগে উঠে নিবিড় পাতার নীচে নরম ছায়ায়
বসে দোয়েল ফিঙের শিস দিতে দিতে
খাল- বিল – নদী- নালা – খানা খন্দের গন্ধ শুঁকে
শাপলা – শালুক – পদ্ম- শিউলির সুবাস মাখা
ডানায় উড়ে শরত নদীর তীরে তীরে
কাশ বিছিয়ে সবুজ ধানের নৃত্য দেখো ।

যে তুমি রোদ পাহাড়ে কাক তাড়া পেঁচার আতঙ্ক মেখে
ধান কাটা নাড়ার ঝোপে বাজ পাখির লক্ষ্যভ্রষ্ট
ত্রস্ত শালিকের নাভিশ্বাস নিতে নিতে সাপ তাড়া ব্যাঙের
মরণ ঝাঁপে জীবন সেঁকে জল বিছুটির বন মাড়িয়ে
কাঠঠোকরার ঘাম রাঙা কোটরে কাল কেউটের
শীত ঘুমের ভিতর মহল দারের জীবন- মৃত্যুর
সূক্ষ্ম সীমায় পা ফেলে রস ঠুলির থেকেও
ভঙ্গুর হয়ে টলটলে খেজুর রসে শুয়ে আছো
ভীমরুলের হুল বিছানো ফণীমনসার মাদুর পেতে ।

যে তুমি শুকনো বিলে মরা ঝিনুকের খোলায়
চিত শুয়ে রাত ভর নক্ষত্র গুণে প্রথম প্রত্যুষে
ক্ষুধার্ত বকের দীর্ঘশ্বাসে শিশির শুকতে শুকতে
খটখটে পাঁকের ভিতর কই মাগুরের তপস্যার কাছে
পরাজয় মেনে আকাশ জুড়ে সাজাতে থাকো বর্ষা ।
বন ময়ূরের পেখম খোলা নৃত্যের তালে ক্ষেত ছাপানো
ঘোলা জলে কদম ফুলের পাপড়ি ছড়াতে ছড়াতে
বসন্তের টিলা থেকে সুসংহত মিছিল সাজিয়ে
ভুবন ডাঙার পাড়ায় পাড়ায় রং ছড়িয়ে শুকনো শাখায়
মুকুল মেখে জাগিয়ে তোলো মহা জীবনের উল্লাস!

হে সুন্দর ! সেই তুমি ! যাকে অনন্ত কাল ছড়িয়ে
থাকতে দেখেছি মায়ের হৃদয়ে , শিশুর হাসিতে
ভাই বোনের খুনসুটি আর রংতামাশার প্রত্যেকটা আঁচড়ে ।
যাকে অনন্তকাল ছড়িয়ে থাকতে দেখেছি প্রেমিকার চোখে
প্রেয়সীর ঠোঁটে কিশোরীর নথ আর নব বধূর
লজ্জা রাঙা মুখ সৌষ্ঠবের প্রত্যেকটা অভিব্যক্তিতে ।

হে সুন্দর ! সেই তোমাকে বাহান্ন খণ্ড হীরক দ্যুতির
নিপুণ কারুকার্যে মূর্ত করতে চায় আমার চৈতন্যের
ধ্যানমগ্ন পাগল প্রেমিক ! হে সুন্দর ! তুমি মূর্ত হও !
বাহান্ন বর্ণের আলিঙ্গনে মূর্ত হও !

LEAVE A REPLY