বিএনপির হামলার পরও পুলিশ ফায়ার করেনি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

0
92
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল

দৈনিক আলাপ ওয়েবডেস্ক:‌ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সামনে পুলিশকে পিটিয়ে আসামিদের ছিনিয়ে নেওয়া হলো। পুলিশের দুটি রাইফেল ভাঙা হলো। তারপরও পুলিশ ফায়ার করেনি।

শনিবার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন কবিরের আত্মজীবনীমূলক বই ‘আমার জীবন স্মৃতি-২’-এর প্রকাশনা উৎসবে সাংবাদিকদের পাঠানো প্রশ্নের জবাবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বিএনপির কোনো শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশ বাধা দেয় না। কোনো শান্তিপূর্ণ সমাবেশ, মিটিং, সেটা রাজনৈতিক হোক, সামাজিক হোক না, কোনো কিছুতেই বাধা দিচ্ছে না সরকার।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সবকিছুতেই অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। শুধু আমাদের আবেদন থাকে সমাবেশ, মিটিং শান্তিপূর্ণভাবে করতে হবে।’

২২ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় বিএনপির মহাসমাবেশ প্রসঙ্গে আসাদুজ্জামান খান বলেন, সম্প্রতি ঢাকায় সভা, সমাবেশের ওপর জারি করা ডিএমপি কমিশনারের নিষেধাজ্ঞা এখনো প্রত্যাহার হয়নি। সেটা প্রত্যাহার হলে কোথায় সমাবেশ করলে শান্তি-শৃঙ্খলা বিঘ্নিত হবে না, তা পুলিশ কমিশনার স্থির করবেন। তিনি আরও বলেন, ‘সমাবেশ কোথায় বিএনপি করতে চায়, আমার জানা নেই। তবে যেখানে করলে শান্তি-শৃঙ্খলা বিঘ্নিত হবে না, সেখানেই তারা (বিএনপি) করতে পারবে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সামনে পুলিশকে ম্যারাথন পেটানো হলো, প্রিজন ভ্যান ভাঙা হলো, সেখান থেকে আসামিদের ছিনিয়ে নেওয়া হলো, পুলিশের দুটি রাইফেল ভাঙা হলো। তারপরও পুলিশ ফায়ার করেনি, ওপেনও করেনি। পুলিশ কোনো জায়গায় বাধা দিচ্ছে, এটি সঠিক নয়।

পৌরসভার মেয়র নায়ার কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর) আসনের সাংসদ র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, চট্টগ্রাম রেঞ্জের পুলিশের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মনির-উজ-জামান, জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সাহিত্য একাডেমির সভাপতি কবি জয়দুল হোসেন, আইডিয়াল রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ সোপানুল ইসলাম প্রমুখ।

এদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিকেল পৌনে চারটার দিকে জেলা শহরের টেংকের পাড়ের ছয়তলাবিশিষ্ট পুলিশ সার্কেলের কার্যালয় কাম আবাসিক ভবনের নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকাজের উদ্বোধন করেন। বিকেল পাঁচটার দিকে জেলা ঈদগাহ মাঠে জেলা পুলিশ আয়োজিত হিফজুল কোরআন, কেরাত ও হামদ-নাত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

LEAVE A REPLY