বেগম খালেদা জিয়ার জন্য নিরপরাধ ফাতেমাও জেল খাটছে – প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

0
62

ঢাকা প্রতিনিধি: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জন্য তার নিরপরাধ গৃহপরিচারিকা ফাতেমা বেগম জেল খাটছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার বিকেলে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি বিএনপি চেয়ারপারসনের জন্য কী করতে পারবো। বরং আমি আরও একটা অন্যায় কাজ করেছি। বলেন তো অন্যায় কাজটা কি? একজন নিরপরাধ মানুষ, ফাতেমা বেগম। ওনার সঙ্গে এখন কাজের লোক লাগবে। সাজাপ্রাপ্ত কোন আসামিকে কোনো দেশে মেড সার্ভেন্ট দেয়া হয়? তাদের সেই দাবিও মেনে নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় তার সঙ্গে কাজের লোক দিয়েছে।

ফাতেমা বেগমের কারাগারে থাকার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানবাধিকার কর্মীরাও চুপ কেন? কোনো একজন নিরপরাধ মানুষ কেন খামাখা জেল খাটবে। যদি ভালো বেতন-টেতন দিতো, তাও না। কত বেতন দেয় সেটাও জিজ্ঞাসা করে নিবেন, আমি আর বলতে চাই না। আমার প্রশ্ন খালেদা জিয়ার কারণে বিনা বিচারে, বিনা অপরাধে, বিনা সাজায় কেন একজন মানুষ জেল খাটবে?

প্রধানমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়াকে আমি জেলে পাঠাইনি। আমি যদি তাকে জেলে পাঠাতাম তাহলে সেটা ২০১৫ সালেই করতাম। তখন সে নিরপরাধ মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করছিলো। ৬৮ জন লোক নিয়ে নিজেই নিজেকে একটা অফিস রুমে অন্তরীণ করেছিল। সেখান থেকে হুকুম দিয়ে পুড়িয়ে মানুষ মারলো, তখনই আমি তাকে গ্রেপ্তার করতাম। কিন্তু আমি রাজনৈতিকভাবে করতে চাইনি। এমনকি আপনারা জানেন, তার ছেলে মারা গেলো আমি দেখতে গেলাম। আমার মুখের ওপর দরজা বন্ধ করে আমাকে ঢুকতে দিল না। আমি কিন্তু তালা লাগিয়ে দিতে পারতাম। আমি কিন্তু তাও করি নাই।

তিনি বলেন, দশ বছর ধরে মামলা চলেছে, ১৫২ বা ১৫৪ বার সময় নিয়েছে। তিনবার কোর্ট দল হয়েছে। ২২ বার রিট হয়েছে। তারপরেও বিএনপির এত বড় বড় আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আইনজীবীরা কিছুতেই প্রমাণ করতে পারে নাই যে, এতিমের টাকা এনে খালেদা জিয়া চুরি করে খাননি। কোর্টের রায়ে আইনগতভাবে খালেদা জিয়া কারাগারে গেছেন তাই সরকারের কাছে দাবি করে বিএনপির কোনো লাভ নেই।

খালেদা জিয়াকে মুক্তি না দিলে বিএনপি নির্বাচনে না আসার ঘোষণা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কে নির্বাচনে আসবে আর কে আসবে না সেটা সরকারের বিষয় না। এটা সে দলের বিষয়। জনগণই ঠিক করবে আগামীতে কে সরকার গঠন করবে।

৮ ফেব্রুয়ারি থেকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছর সাজা পেয়ে ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন খালেদা জিয়া। পরে ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে আদালতের অনুমতি নিয়ে তার সঙ্গে থাকছেন ফাতেমা বেগম ।

LEAVE A REPLY