শাজাহান খান কী করে মন্ত্রী? প্রশ্ন কামাল লোহানীর

0
69

ঢাকা প্রতিনিধি: পরিবহন চালক শ্রমিকদের শাস্তির বিরুদ্ধে দাঁড়ানো নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খানকে কুৎসিত লোক বলেছেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী। একইসঙ্গে তিনি শাজাহান খানের মন্ত্রিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।এছাড়া তিনি আইনমন্ত্রী ও তথ্যমন্ত্রীর কঠোর সমালোচনা করেন। নারায়ণগঞ্জের প্রভাবশালী নেতা শামীম ওসমানের বিরুদ্ধেও তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আরণ্যক নাট্যদলের মে দিবসের আয়োজনে যোগ দিয়ে কামাল লোহানী বলেন, “সড়কে চালকদের যোগ্যতা নিয়ে যখন প্রশ্ন উঠছে, যখন মানুষ মারার অপরাধে তাদের মৃত্যুদণ্ডের দাবি ওঠে, তখন তার বিপরীতে অবস্থান নেন মন্ত্রী শাজাহান খান। তিনি বলছেন, চালকদের কুকুর–বিড়াল চিনলেই হবে। এই কুৎসিত লোকটি কী করে মন্ত্রী হয়?”

তিনি বলেন, “মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় যখন আমরা বাংলাদেশ গড়ার কথা বলছি, তখনিএই কুৎসিত লোকটি কী করে মন্ত্রিসভার সদস্য হন? তিনি একইসঙ্গে শ্রমিক আন্দোলন করছেন, আবার মন্ত্রিত্বও জাহির করছেন- এটা কী করে সম্ভব?”তিনি অভিযোগ করেন, “বাসচালক –শ্রমিকদের কাছ থেকে টাকা আদায় করে তিনি এখন সেই টাকার বলে মানুষ কিনে নিচ্ছে।”তিনি শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, “দেশের ‘বহুল প্রচারিত’ একটি পত্রিকায় শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে লেখা পাঠালে তা ফেরত এসেছে। অর্থের জোর বড় সাংঘাতিক।”

কামাল লোহানী অভিযোগ করেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারার মাধ্যমে সরকার মুক্তবাক, মুক্তকণ্ঠ রোধ করতে চায়। এ সময় তিনি আইনমন্ত্রী, তথ্যমন্ত্রীর কঠোর সমালোচনা করেন।আরণ্যক নাট্যদলের প্রধান মামুনুর রশীদও শাজাহান খানের কঠোর সমালোচনা করে তাকে বিচারের কাঠগড়ায় তোলার দাবি জানান।মামুনুর রশীদ বলেন, “বাংলাদেশের ২ শতাংশ মানুষ ৯৮ শতাংশ রাষ্ট্রীয় সম্পদের মালিক বনে গেছে। উল্টোদিকে বাঙালির মধ্যে এখনও কর্মসংস্কৃতি আসেনি। বাঙালি সেই অলস আর কুঁড়েই থেকে গেছে।”শ্রমিক আন্দোলনের নেতারা এখন সরকারের গান গায় বলে অভিযোগ করেন নাট্যব্যক্তিত্ব মান্নান হীরা।

তিনি বলেন, “দেশের শ্রমিক শ্রেণি এখন মৃতপ্রায়। অধিকার আন্দোলনের বদলে তারা সরকারি প্রচারণায় ব্যস্ত। তাদের কণ্ঠে শোনা যায় শোষকের জয়গান। ট্রেড ইউনিয়নের ম্যানেজমেন্ট এখন শোষকের সঙ্গে আপস করে শ্রমিকদের অন্ধকারে রেখেছে।”

LEAVE A REPLY