সভ্যতাকে প্রশ্ন রেখে কবি দীপান্বিতা বিশ্বাসের অসাধারণ কবিতা ”তারাও_প্রতিবাদী_ছিল” সৌজন্যে ফাল্গুন দুহিতা রুমকি আনোয়ার । ফাল্গুনের সেরা থেকে ।

1
289
ওপার বাংলা ভারতের কবি দীপান্বিতা বিশ্বাস

        ”তারাও_প্রতিবাদী_ছিল”

                                                           দীপান্বিতা বিশ্বাস

(ফাল্গুনের কৃষ্ণচূড়া গত দু মাসের ( জুন ও জুলাই )সেরার ৩য়  কবিতা )
সভ্যতার মুখের উপর–

গণতন্ত্র গায়ে মৃত চাদর জড়িয়ে,
তপ্ত গরমে শীত ঘুমে মত্ত…
নিচু জমির তলায় কে হারাচ্ছে কে ফুরাচ্ছে,
সে হিসেবে আজ ঘুন ধরেছে।
টাকার জোরে রমরমিয়ে চলছে বেচা কেনা–
হাটের মাঝে অনাগত ভবিষ্যৎ চিত্রপটের।
ধু ধু বালির উপর দু রাতে তৈরী হচ্ছে আকাশ ছোঁয়া অট্টালিকা,
শরীর থেকে পিচ গলা রক্ত ঝরে পড়ছে প্রতিটা দেওয়াল জুড়ে…
শহরের আলোর অন্দরমহলে চলেছে সুধা রসের খিল খিল শব্দ,
আর নদীর চড়ে শুয়ে কিছু ক্ষুধার্থ মানুষ–
খুবলে খাচ্ছে প্রতিটা ডাস্টবিনের তিক্ত খাবার…
মহা সমুদ্রের তলায় জমা হচ্ছে অমৃতের ভান্ডার,
কে ডুববে,কে গিলবে দ্বন্দ লেগে রোজ খবরের পাতায়…
এক শ্যামলা রঙের কাজলহীন মেয়ে চেঁচিয়ে বলেছিলো–
আমি বুরুণা নয়,আমি কল্পনা হতে চাই…
ডিগ্রির পাতা উল্টে পাল্টে,গিলে খেয়েছে কিছু হিংস্র কুমির…
সেই মেয়েটির নাম আজ বরুণা..
এমন হাজার বরুণা ঘুরে বেড়ায় অন্ধকার গলির কক্ষপথে…
তারপর সেই কোঁকড়া চুলের প্রতিবাদী ছেলেটি–
বলেছিল আমি শহরের বুকে আকাশগামী পাহাড় গড়বো।
নিজের শরীরের প্রতিটা ঘামের বিন্দু,মেঝের শরীরে ফেলে…
আজ তার অভুক্ত শরীর শোয়ানো আছে কার্পেটের লালে।
সাবানফেনার জ্বালার মতো জ্বলছে তার অলিন্দ থেকে ফুসফুস..
কোথায় সেই রাজতন্ত্রের প্রসিদ্ধ ভাষা?
কোথায় সেই মানবিকতার স্বচ্ছ আচরণ….
নীতির উপর আজ শ্যাওলা জমেছে,
আর মহাজাগতিক ইতিকথা—
খেই হারিয়ে ডুবে যাচ্ছে ভরা নদীর অতল জলে…

1 COMMENT

LEAVE A REPLY