স্যাটেলাইটে লেখা থাকছে ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ – উৎক্ষেপণের ক্ষণগণনা চলছে

0
91

নিজস্ব প্রতিনিধি: মহাকাশে থাকা স্যাটেলাইটে সাধারণত স্মৃতি হিসেবে কোনো কিছুই লেখা থাকে না বা লিখে রাখার কোনো নিয়ম নেই। কিন্তু এক্ষেত্রে আরেকটি ইতিহাসের সাক্ষী হচ্ছে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট। বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের গায়ে লেখা থাকছে ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’।

স্থানীয় সময় বুধবার ফ্লোরিডার একটি হোটেলে এমনটিই জানালেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

বিশ্বের ৫৭ তম দেশ হিসেবে মহাশূন্যে বাংলাদেশর নাম লেখাতে বাকি আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা। সবকিছু ঠিক থাকলে বাংলাদেশ সময় আজ রাত ২টা ১২ মিনিটে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা থেকে উৎক্ষেপণ করা হবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ১। ৩৬ হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে স্যাটেলাইটটির নিজস্ব কক্ষপথে পৌঁছানোর পর ৮ থেকে ১০ দিনের মধ্যে এই স্যাটেলাইটের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ পাবে বাংলাদেশ।

এর পরেই গাজীপুরে নির্মিত ল্যান্ডিং স্টেশন থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হবে মহাকাশে স্থাপিত বাংলাদেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ। তবে এরই মধ্যে এই স্যাটেলাইটের বাণিজ্যিক ব্যবহারে কাজ শুরু করেছে নবগঠিত বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি।

বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, স্যাটেলাইট প্রযুক্তি অত্যন্ত জটিল একটি প্রযুক্তি। যেকোনো সময়ে যেকোনো কিছু ঘটতে পারে। অতীতে দেখা গেছে, লাস্ট কাউন্টডাউনের সময়েও উৎক্ষেপণ থেমে গেছে। গাজীপুরে আমাদের মূল গ্রাউন্ড স্টেশনে কাজ করার জন্য ফ্রান্স থেকে ৩০ জন দক্ষ প্রকৌশলীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে আনা হয়েছে।

এই প্রকল্প সম্পন্ন করতে ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৯৬৭ কোটি টাকা। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বয়সসীমা ১৫ বছর ধরা হলেও প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন ৬ থেকে ৭ বছরের মধ্যেই উঠে আসবে পুরো বিনিয়োগের টাকা।

বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, আমরা ছয় থেকে সাত বছরের মধ্যে লাভজনক অবস্থানে চলে আসতে পারব। এটির ডিটিএইচ, ভিডিও ডিস্ট্রিবিউশন, ভিসেট নেটওয়ার্ক এবং ট্রান্স কমিউনিকেশন আছে। বিপণনের জন্য এরই মধ্যে একটি টিম গঠন করা হয়েছে। তারা এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছেন।

LEAVE A REPLY